মেনু নির্বাচন করুন
পাতা

খাল ও নদী

ইউনিয়ন পরিচিতি : ভোগলিক ও অর্থনৈতিক খাল ও নদী:

কুতুকছড়ি ইউনিয়নটি ৩টি মোজা নিয়ে গঠিত। মোজা ৩টি হচ্ছে- ১১১নং কুতুকছড়ি, ১১২নং ডলুছড়ি, ১১৩নং তৈমিদং। প্রতিটি মোজা ৩টি ওয়ার্ডে বিভক্ত। উল্লেখ্য প্রত্যেক মোজা ১টি খালের নামে নাম করণ করা হয়। ১১১নং কুতুকছড়ি মোজা কুতুকছড়ি খালের  নামে, ১১২নং ডলুছড়ি মেৌজা ডলুছড়ি খালের নামে এবং ১১৩নং তৈমিদং মেৌজাটি  তৈমিদং খালের নামে নাম করণ করা হয়।  ৪নং কুতুকছড়ি ইউনিয়নটি কুতুকছড়ি খালের নামে নাম করণ করা হয়। কুতুকছড়ি এই তিনটি খালছাড়াও আরো অনেক ছোট ছোট খাল বা ছড়া আছে।

 

ভোগলিক সীমানা: উত্তরে- নানিয়ারচর উপজেলার  ৪নং ঘিলাছড়ি ইউনিয়ন

                     দক্ষিণে- রাংগামাটি সদর উপজেলার ৩নং সাপছড়ি ইউনিয়ন

                      পূর্বে- চেংগী নদী ও ৫নং বন্দুকভাংগা ইউনিয়ন

                   পশ্চিমে- কাউখালী উপজেলার ঘাগড়া ইউনিয়ন।

মোট আয়তন :  ১১.১৬৮ একর, ৪৫.২০ বর্গকিলোমিটার।

কৃষি জমির পরিমাণ: ২৭২৬ একর।

 

          কুতুকছড়ি ইউনিয়নে প্রধান অর্থকড়ি ফসল হচ্ছে-ধান, আনারস, কলা, কাঠাল, আদা, হলুদ ইত্যাদি। ইহাছাড়াও বনজ বৃক্ষ সৃজনের মাধ্যমে অনেকে অর্থনৈতিক ভাবে স্বাবলম্বী হয়েছে।

ছবি


সংযুক্তি



Share with :

Facebook Twitter